কলেজ ভর্তি নিয়ে আমাদের সবার সাম্প্রতিক উদ্ধেগ নিয়ে কিছু কথা । সরকার এ বছর কলেজ গুলোতে স্মার্ট এডমিশন সিস্টেম এর সিদ্ধান্ত নেয় এবং এর পরিচালনার জন্যে বুয়েট এর একটি ইনস্টিটিউট (আইআইসিটি) কে দায়িত্ব দেয়। কাজটি যেহেতু আই আই সি টি এর অভ্যন্তরীণ বিষয়, এ ব্যপারে আমরা সি এস ই ডিপার্টমেন্ট এর কেও ওয়াকিবহাল ছিলাম না।

স্মার্ট এডমিশন সিস্টেম

মোহাম্মাদ ইউনূস আলী

কলেজ ভর্তি নিয়ে আমাদের সবার সাম্প্রতিক উদ্ধেগ নিয়ে কিছু কথা । সরকার এ বছর কলেজ গুলোতে স্মার্ট এডমিশন সিস্টেম এর সিদ্ধান্ত নেয় এবং এর পরিচালনার জন্যে বুয়েট এর একটি ইনস্টিটিউট (আইআইসিটি) কে দায়িত্ব দেয়। কাজটি যেহেতু আই আই সি টি এর অভ্যন্তরীণ বিষয়, এ ব্যপারে আমরা সি এস ই ডিপার্টমেন্ট এর কেও ওয়াকিবহাল ছিলাম না। আমরাও অন্য সবার মত টিভি স্ক্রল দেখে বিষয়টি জানতে পেরেছি। যখন ডেডলাইন শেষ হওয়ার পর দিতীয় দিনেও আই আই আই সি টি এর পক্ষে রেসাল্ট প্রকাশ করা সম্ভব হল না, তখন মাননীয় শিক্ষা সচিব শনিবার (২৭/০৬/২০১৪) খুব ভোরে কায়কোবাদ স্যারকে বিষয়টি জানান। কায়কোবাদ স্যার তৎক্ষনাত বিষয়টি আমার এবং মোস্তফা স্যার এর সাথে শেয়ার করেন। বিষয়টি যেহেতু জাতীয় জন-গুরত্বপূর্ণ বিষয়, স্যার আমাদেরকে বিষয়টি দেখার জন্যে অনুরোধ করেন।

আমরা শনিবার সকাল ১১ টার দিকে কায়কোবাদ স্যার, মোস্তফা স্যার, আমি, রিফাত, সুকর্ণ এবং কায়সার আই আই সি টিতে যাই। পুরো সিস্টেমটি জানার পরে আমরা শনিবার সন্ধ্যা থেকে কাজ শুরু করি। এর মধ্যে আমরা সবাই পালাক্রমে বিশ্রাম নিলেও, কায়কোবাদ স্যার এক বারের জন্যেও বিশ্রাম নেননি। রোববার রাতের মধ্যে আমরা দুটি স্বতন্ত্র সমাধান দিতে সক্ষম হই (একটি আই আই সি টি এর কোডবেস এর উপর এবং অন্যটি সম্পূর্ণ নুতন যেটা কয়েক সেকন্ড এর মধ্যে সমাধান বের করতে পারে (থাঙ্কস টু কায়সার এন্ড সুকর্ন smile emoticon )। যদিও শেষ পর্যন্ত আমরা সমাধান দুটি নিয়ে সম্পূর্ণ (১০০%) সন্তুষ্ট ছিলাম না। মাননীয় সচিবের আগের দিনের কমিটমেন্ট এর কারণে আমাদেরকে তৎক্ষনাত রেজাল্ট হস্তান্তর করতে হয়। অতএব, এখানে বুয়েট কিংবা সি এস ই বিভাগের এর সক্ষমতা নিয়ে কোন প্রশ্নের সুযোগ নেই।

আরো কিছু বিষয় বিষয় এখানে পরিস্কার হওয়া উচিত
-কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সি এস ই) বিভাগ প্রথম থেকে এই কাজের সাথে যুক্ত ছিল না। আইআইসিটি কিংবা শিক্ষা মন্ত্রনালয় আমাদের কাছে এ ব্যপারে কোন সহযোগিতা চাইনি। যখন চেয়েছে (ডেডলাইন শেষ হওয়ার দুদিন পরে), তখন আমরা বিষয়টি জাতীয় জন-গুরত্বপূর্ণ এবং বুয়েট এর সম্মান রক্ষার্থে, আমরা যথাসাধ্য চেষ্টা করেছি এবং সফলও হয়েছি।

-বুয়েট এর বাইরে কেউ আই আইসিটিকে চিনে না। সবাই মনে করে বুয়েট কাজটি করছে। অথচ বুয়েট এর প্রতিটি ডিপার্টমেন্ট ও ইনস্টিটিউট স্বতন্ত্র। যার যার দায়ভার তার। এখানে বাইরের organization গুলোকে, শুধু বুয়েট নাম দিয়ে উদ্বুদ্ধ না হয়ে, যারা আসল কাজটি করবে, তাদের প্রোফাইল সম্পর্কে সম্যক ধারণা নিয়ে চুক্তিবদ্ধ হওয়া উচিত।

– আইআইসিটি মূলত বুয়েট এর আইটি রিলেটেড সাপোর্ট সার্ভিস যেমন ইন্টারনেট সেবা, স্টুডেন্ট এবং টিচারদের একাডেমিক ইনফরমেশন ইত্যাদি রক্ষনাবেক্ষণ এর কাজ করে থাকে। এর সাথে কম্পিউটার সাইন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সি এস ই) বিভাগের কোন সম্পর্ক নেই।

মোহাম্মাদ ইউনূস আলী
প্রফেসর, সিএসই বিভাগ, বুয়েট ।