স্মার্টফোনের ব্যবহার সম্পর্কে অনেকেই অনেক বিষয়ে লিখেছন। স্মার্টফোনের ব্যবহারকারীরাও জেনে গেছেন খুটিনাটি অনেক কিছু। তারপরও জানার যেন শেষ নেই। নিত্য নতুন প্রযুক্তি প্রতিদিনই চোখের সামনে এসে পড়ছে। এমনিই এক প্রযুক্তি হচ্ছে ওয়্যারলেস বা তারহীণ চার্জিং। ওয়্যরলেস ইন্টারনেটের কথা সবাই শুনেছেন এমনকি ব্যবহার করেছেন অনেকে। সময় এসেছে এবার ওয়্যারলেস চার্জিং নিয়ে কাজ করার। স্মার্টফোন চার্জ হবে এখন তার ছাড়াই। তারের ঝামেলা আর কত বয়ে বেড়াবে বিশ্ব? আমরা হয়তো কাজের এসব কথা বলতে বলতে কোন একটি প্রতিষ্ঠান ততক্ষণে প্রযুক্তিটি তৈরি করে ফেলেছে। শুনে খুবই অবাক হবেন যে এ্যানারজিয়াস নামের একটি প্রতিষ্ঠান ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তি তৈরি করেছে।

e5kBJWT

 

‘ওয়্যারলেসলি ট্রান্সমিটিং পাওয়ার’ পদ্ধতিতে ১৫ ফুট দুরত্বে থাকা স্মার্টফোন অনায়াসেই চার্জ দেয়া যাবে। এ পদ্ধতিতে ১০ ওয়াটের মতো বিদ্যুৎ সরবরাহ সম্ভব। একটি ডিভাইস ঘরের বা অফিসের এক কোণে বৈদ্যুতিক সংযোগ দিয়ে ফেলে রাখলেই হয়। ডিভাইসটি থেকে সংযোগকৃত স্মার্টফোন বা ট্যাবলেট নির্দিষ্ট দুরত্বের মধ্যে থেকে চার্জ দেয়া যাবে। পিজিওলেক্ট্রিক এক্সিলেরোমিটার কম আকারের ভোল্টেজ উৎপন্ন করতে পারে আর এ প্রযুক্তি বসানো থাকবে ডিভাইসটিতে। এছাড়া এতে আরো আছে মিলিভোল্ট সিগনাল যার মাধ্যমে তার ছাড়াই চার্জ হবে স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট। স্মার্টফোন ও ট্যাবলেটের নিয়ার ফিল্ড কমিউনিকেশন (এনএফসি) প্রযুক্তির মাধ্যমে তারহীন চার্জিং দেয়া সম্ভব হবে। তবে সব স্মার্টফোনের এনএফসি চিপ ওয়্যারলেস চার্জিং-এর জন্য উপযুক্ত না। এখন পর্যন্ত নোকিয়ার লুমিয়া ৯২০ মডেলের স্মার্টফোন ছাড়া আর কোন প্রতিষ্ঠান এ প্রযুক্তি সম্বলিত স্মার্টফোন বাজারে আনেনি।

nokia-lumia-920-wireless-charging-640x353

 

ওয়্যারলেস চার্জিং সুবিধা- শুনলেই মনে হয় যেন আরো আধুনিক হয়ে গেলাম। তবে আসল কথা হলো ওয়্যারলেস চার্জিং প্রযুক্তিটি আগামি ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে অনুষ্ঠিতব্য কনজ্যুমার ইলেক্ট্রনিক্স শো (সিইএস)-তে প্রদর্শন করা হবে বলে বিভিন্ন মাধ্যম থেকে শোনা গেছে। অন্যান্য সহযোগি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গ মিলে প্রযুক্তিটি বাজারে ছাড়া হবে।

ইন্টেল, কোয়ালকম এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের চিপ বসানো ওয়্যারলেস ডিভাইসে ওয়্যারলেস পাওয়ার ট্রান্সফার করার সময় কোন ধরনের ম্যাগনেটিক রেজোনেন্স সংগঠিত হয় না। এ কথা বলার কারণই হলো, ম্যাগনেটিক রেজোনেন্স ব্যবহারের ক্ষেত্রে কিছু বৈজ্ঞানিক নিয়ম ও বাধ্যবাধকতা রয়েছে যা বিভিন্ন দেশের সরকার থেকে এর ব্যবহার কঠোরভাবে নিষেধ করা আছে। ডিভাইসে কয়েকটি বিমফর্মিং এন্টেনা আছে যার মাধ্যমে এক সঙ্গে অনেকগুলো ডিভাইস চার্জ দেয়া যাবে।

আপনাদের ওয়্যারলেস চার্জিং সম্পর্কে আপনাদের জানানোর চেষ্টা করলাম। বৈজ্ঞানিক বিশ্লেষণে গেলে অনেকেই বুঝে উঠতে পারবে না হয়তো। ভবিষ্যৎ প্রযুক্তি নিয়ে জটিল কিছু লেখার চেয়ে প্রথমিক ধারনা থাকলেই যথেষ্ট বলে মনে হয়।

আসল কথা হচ্ছে দিন দিন প্রযুক্তি পণ্যগুলোতে তারের ব্যবহার কমিয়ে ফেলা হচ্ছে। পোর্টেবিলিটি সব কিছুতেই এসে পড়ছে। আর আসবেই বা না কেন? মানুষ এখন সহজ থেকে সহজতর জীবন যাপনে অভ্যস্থ হয়ে পড়ছে আর প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠানগুলো সেভাবে নিজেদের পণ্য সামগ্রী তৈরি করছেন।