চলছে কাউন্টডাউন। আর মাত্র ১৯ দিন। এর পরেই পর্দা উঠতে যাচ্ছে ফুটবলের সবচেয়ে বড় আসর বিশ্বকাপ ফুটবলের। এ নিয়ে ফুটবল ভক্তদের আগ্রহের কোন কমতি নেই। তবে খেলা এবং খেলোয়াড়দের পাশাপাশি আরও একটি বিষয় নিয়েও তাদের মধ্যে বেশ আগ্রহ দেখা যাচ্ছে। আর তা হল এবারের বিশ্বকাপে নানা রকম প্রযুক্তির চমক। নানান প্রযুক্তির ব্যবহারে এবারের বিশ্বকাপ হতে যাচ্ছে অন্যবারের থেকে বেশ আলাদা।

গোল লাইন প্রযুক্তি, চার হাজার পিক্সেলে ম্যাচের ভিডিও ধারন সহ আরও নানা প্রযুক্তিতে ভরপুর থাকবে এবারের বিশ্বকাপ। সে সকল প্রযুক্তির সাথে আপনাদের স্বল্প পরিসরে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার জন্যই এই ক্ষুদ্র আয়োজন। চলুন তাহলে, এক পলক দেখে নেওয়া যাক।

গোললাইন প্রযুক্তিঃ এবারের বিশ্বকাপে সবচেয়ে আলোচিত বিষয় হচ্ছে গোললাইন প্রযুক্তি। গোল সংক্রান্ত জটিলতা নিরসনে এই প্রযুক্তির ব্যবহার বেশ অনন্য। এর মাধ্যমে বল গোলপোস্টের লাইন অতিক্রম করার এক সেকেন্ডের মধ্যে স্বয়ংক্রিয়ভাবে রেফারিকে জানিয়ে দেবে। ফলে গোল হওয়া নিয়ে থাকবেনা কোন সংশয়।

নিচের ভিডিও লিঙ্কটি দেখতে ক্লিক করুন

Youtube video link

৪ কে ভিডিও ধারনঃ বিশ্বের সকল প্রান্তের সকল ফুটবল প্রেমীদের ঝকঝকে ছবির নিশ্চয়তা দিতে এবারের বিশ্বকাপ ফুটবলের ভিডিও ধারন করা হচ্ছে চার হাজার পিক্সেলে। আর এ ব্যাপারে ফিফাকে সহযোগিতা করছে জাপানের সনি কর্পোরেশন। তবে এই প্রযুক্তির টিভি এখনো সহজলভ্য না হওয়ায় এখনি এর সুফল পাচ্ছে না সাধারন মানুষ। তবে এই প্রযুক্তির ব্যবহার ২০১৪ বিশ্বকাপকে করবে অন্যান্য সকল বারের থেকে আলাদা।

ব্রাজুকাঃ এতদিনে আপনি নিশ্চয় জেনে গেছেন এবারের বিশ্বকাপে ব্যবহৃত ফুটবলটির নাম “ব্রাজুকা”। সেই ১৯৭০ সাল থেকে চলে আসা রীতিতে এবারের ফুটবলটিও তৈরি করেছে এডিডাস। ব্রাজিলের ১ মিলিয়ন ফুটবল ভক্তের ভোটে নির্বাচন করা হয়েছে এই নামটি। তবে এই বলটিতেও রয়েছে প্রযুক্তির ছোঁয়া। পরস্পর সংযুক্ত ৬ টি পলিইউরেথিনের অংশ একত্রিত করে তৈরি করা হয়েছে এই বলটি। আর বলটির গতি এবং ধরার জন্য এর গায়ে থাকছে হাজার হাজার গুটি।

 

অনলাইন গেমঃ বিশ্বকাপকে মাথায় রেখে তৈরি করা হয়েছে নানা অনলাইন গেম। এর মধ্যে আপনি ফিফার ওয়েবসাইটে পাবেন Castrol’s FIFA World Cup Predictor Challenge, McDonald’s FIFA World Cup™ Fantasy এবং Panini Online Sticker Album- এই তিনটি গেম। গেমগুলোতে অংশ নিয়ে বিজয়ী হলে আপনি পাবেন নানা আকর্ষণীয় পুরস্কার।