গুগল পরিবর্তিত নামকরা প্রতিষ্ঠান অ্যালফাবেট দেখছে আলোর মূখ। এবার তারা পৌঁছে যাচ্ছে প্রযুক্তির বাজারের সর্বশির্ষে। এবার আর গুগলকে পিছনে ফিরে তাকাতে হবে না। গুগলের এই অসামান্য শেয়ার বাড়ায় পিছিয়ে পরছে অ্যাপল। টেকজায়েন্ট গুগল ও অ্যাপল হচ্ছে চির প্রতিদ্বন্দ্বী দুই কোম্পানি। নতুন নত্ত নিয়ে এসে তারা সর্বদাই কোন কোন ভাবে একে অপরের থেকে এগিয়ে থাকে। অ্যাপল ক্ষেত স্টিভ জব সর্বদাই বুদ্ধির পরিচয় দিয়ে শেয়ার বাজারে এগিয়ে থাকে। প্রযুক্তির সব থেকে উচ্চ পর্যায়ের চিন্তা ভাবনা নিয়ে অ্যাপল এর থাকে না কোন কমতি। অন্যদিকে গুগল ও ম যায় না তারাও থাকে তাদের মাল্টিপল প্রোডাক্ট নিয়ে এগিয়ে। এই জন্য হয়তো তারা সর্বদাই র‍্যাঙ্কিং এর দিক থেকে পাশা পাশি থাকে।

অ্যালফাবেট শেয়ার এবার শীর্ষ

অ্যালফাবেট

বিশ্বের সবচেয়ে মূল্যবান প্রতিষ্ঠানের তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে গুগলের মূল প্রতিষ্ঠান অ্যালফাবেট। অন্যদিকে গত তিন বছরে প্রথমবারের মতো শীর্ষস্থান হারাতে বসেছে অ্যাপল। গত সোমবার রাতে অ্যালফাবেটের শেয়ারমূল্য ৬ দশমিক ৫ শতাংশ বাড়ায় প্রতিষ্ঠানটির মূল্য বেড়ে ৫৫ হাজার কোটি মার্কিন ডলারে পৌঁছায়। আজ বুধবারও যদি অ্যালফাবেটের শেয়ারমূল্য বৃদ্ধির এই ধারা অব্যাহত থাকে তবে ইতিহাসে প্রথমবারের মতো সাফল্যের শীর্ষে উঠে আসবে গুগল। মূলত গুগলের বিজ্ঞাপনী আয় বেড়ে যাওয়ার কারণেই গত বছরের শেষ প্রান্তিকে অ্যালফাবেটের মুনাফা বাড়ে ৫ দশমিক ৩ শতাংশ। ২০১৫ সালে গুগল ইনকরপোরেটেডের শুধু ইন্টারনেট ব্যবসা থেকেই মোট আয় হয়েছে ৭ হাজার ৪৫০ কোটি ডলার। গুগলের প্রধান অর্থনৈতিক কর্মকর্তা রুথ পোরাট জানিয়েছেন, স্মার্টফোন এবং ইউটিউবে বিজ্ঞাপন থেকেই এমন মুনাফা অর্জন সম্ভব হয়েছে।  বিনিয়োগকারীদের চাহিদা অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানের আরও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে গত বছর অ্যালফাবেট নামের নতুন প্রতিষ্ঠান গঠন করে গুগলের পুরো ব্যবসা সেটির অধীনে নিয়ে আসে।

এখন কথা হচ্ছে পাবলিকের চাহিদা অনুসারে শেয়ার বাজারের কি রকম আমূল পরিবর্তন হয়। এবার অ্যালফাবেট ও অ্যাপল দেখি কে সর্বচ্চ শেয়ারের অধিকারী হয়। সত্যি বলতে মানতেই হবে অ্যাপল থেকে গুগল মাল্টিপল প্রোডাক্ট নিয়ে বেশি বিজিনেস করে। টেক সমৃদ্ধ গুগল বেশি বেশি চমক নিয়ে হাজির হয়। তাদের রয়েছে সুবিস্তৃত ডটা সেন্টার। তাদের রয়েছে নতুন ও সৃজনশীল অনেক ভাবে ভাবার অনেক লোক।