বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশনস কোম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল)-এর মাঠ পর্যায়ের আঞ্চলিক প্রধান জিএম, প্রধান কর্মাধ্যক্ষ ও প্রকল্প পরিচালকদের নিয়ে দুইদিনব্যাপী সম্মেলনে বিটিসিএলের নানান কার্যক্রম প্রচারণায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। রাজধানীর ইস্কাটনে বিটিসিএলের প্রধান কার্যালয়ে রোববার বিকেলে এ সম্মেলন শেষ হয়।

শনি ও রোববার অনুষ্ঠিত ওই সম্মেলনে জানানো হয়, দেশব্যাপী টেলিফোন ও ইন্টারনেট সার্ভিস সম্প্রসারণ, বিল বিতরণ ও রাজস্ব আদায় জোরদারকরণ, এক মাসের মধ্যে বিলুপ্ত ছিটমহলে টেলিফোন সার্ভিস চালু, জেলা পর্যায়ের ইন্টারনেট ও ডাটাসার্ভিস স্বল্পতম সময়ে প্রদান এবং রক্ষণাবেক্ষণের জন্য আইসিটি সাপোর্ট টিম গঠন, বিটিসিএলের বিভিন্ন সুবিধার প্রচার (সারাদেশে ইন্টারনেটের এক রেট, রাত ৮টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত ১০ পয়সা প্রতি মিনিট কলরেট, ইন্টারনেটে বিল ডাউনলোড সুবিধা) ইত্যাদি বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিটিসিএল কলরেট

বিটিসিএল

মাঠ পর্যায়ের আঞ্চলিক প্রধানদের নিয়ে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে সভাপতিত্ব করেন বিটিসিএলের সদ্য ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) গোলাম ফখরুদ্দিন আহমেদ চৌধুরী। আঞ্চলিক প্রধানগণ বিটিসিএলের সকল কর্মকাণ্ডের কেন্দ্রবিন্দু হবেন ও সকল টেলিযোগাযোগ সুবিধা গ্রাহক পর্যায়ে নিশ্চিত করা ও রাজস্ব আদায়ের প্রধান কর্মকর্তা হিসেবে গণ্য হবেন বলে নির্দেশনা প্রদান করেন সংস্থার এমডি। ঢাকাসহ বিটিসিএলের সকল অঞ্চলের জিএম ও বিটিসিএলের চালু প্রকল্পসমূহের প্রকল্প পরিচালক, বিটিসিএলের সদস্যগণ এবং অর্থ ও রাজস্ব শাখার পরিচালকগণ এ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

যাই হোক বিটিসিএল এর এই উদ্যগটি অনেক সারা ফেলবে। তরুন প্রজন্ম এই কলরেট ও ডাটা প্যাকটিকে স্বাদরে একসেপ্ট করবে। বিশেষ প্রতিবেদন বিটিসিএল  পর পর কয়েকবার তাদের কলরেট কমালেও গ্রামীনফোন সহ বেশ কয়েকটি কোম্পানি তাদের কলরেট ও ডাটা প্যাক কমানো তো দূরে থাক বরং তাড়া জনতার সহ্য সীমার উপর কলরেট ও ডাটা প্যাক বাড়িয়ে চলছে। এখন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির এই যুগে এতো ব্যায়বহুল কলরেট ও ইন্টারনেট প্যাক সত্যই ভাবনার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। তরুন প্রজন্মের নতুন সম্মবনাকে আরও সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে আরও সুলভ মুল্যে প্রযুক্তি পন্য সরবারহ করতে হবে। বাড়াতে হবে তথ্য প্রযুক্তির খ্যাত। ভ্যাট বা শুল্ক কমিয়ে নতুন নতুন উদ্যগ নিতে হবে এবং তা বাস্তবায়নও করতে হবে। ইলেকট্রনিক্স পন্যের পাশা পাশি তথ্য প্রযুক্তির যুগে ডাটা টেলিকমিউনিকেশন এর দিকেও সরকারকে একাটিভ হতে হবে। প্রযুক্তি বিষয়ক নিয়মিত তথ্য জানতে থাকুন যুগটেক এর সাথে। নিয়মিত ব্রাউজ করুন যুগটেক এর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ক্যাটাগরি।