চিরপরিচিত নোকিয়া নামটিকে রিপ্লেস করে টেক জায়ান্ট ‘মাইক্রোসফট’ তাদের প্রথম লুমিয়া স্মার্টফোন ‘Microsoft Lumia 535’ মাইক্রোসফট লুমিয়া ৫৩৫ বাজারে আনছে। তবে, এটিকে সম্ভবত রেভ্যুলেশন বলা যাবেনা কেননা, মাইক্রোসফট লুমিয়া ৫৩৫ স্মার্টফোনটির রুট এখনো রয়ে গিয়েছে নোকিয়াতেই, তাই একে বরং আখ্যায়িত করা যাক ‘নোকিয়া লুমিয়া ৫৩০’ এর একটি আপগ্রেড ভার্সন হিসেবেই। এখনো স্পষ্ট করে বলা যাচ্ছেনা যে মাইক্রোসফটের এই স্মার্টফোনটি একটি সুপ্রিম বাজেট ফোন হবে কিনা যেমনটি মাইক্রোসফট চেয়েছিল, তবে চোখ বন্ধ করে অন্তত বলা যায় যে এই স্মার্টফোনটি ৫৩০ এর একটি ইম্প্রুভড ভার্সন; কেন? পড়লেই বুঝতে পারবেন। হয়তো একমতও হবেন।

Microsoft Lumia 535

ফার্স্ট ইম্প্রেশন

Microsoft Lumia 535 (3)

 

যদি এই ধারণাকে আরেকটু এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায় যে এটি লুমিয়া ৫৩০ এর একটি উন্নত সংস্করণ তবে কিছুটা স্পষ্ট করে এও বলা যায় যে এই ট্র্যান্সফরমেশনে ডিসপ্লে কোয়ালিটিতে কিছুটা হলেও উন্নতি হয়েছে। লুমিয়া ৫৩৫ স্মার্টফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ৯৬০ x ৫৪০ পিক্সেল রেজ্যুলেশন বিশিষ্ট ৫-ইঞ্চি ডিসপ্লে যা লুমিয়া ৫৩০ এর কুৎসিত টিএন-বেসড এলসিডি স্ক্রিনকে রিপ্লেস করেছে। লুমিয়া ৫৩৫ স্মার্টফোনটির স্ক্রিন যে খুব শার্প তাও নয় তবে স্মার্টফোনটির কালার অ্যাপিয়ারেন্স বেশ ভালো এবং ভ্যিউয়িং অ্যাঙ্গেলও ডিসেন্ট। মাইক্রোসফটের দেয়া তথ্য অনুযায়ী স্মার্টফোনটি দিনের বেলায় আউটডোরে ব্যবহারের ক্ষেত্রেও সুপারিয়র ভিসিবিলিটি প্রদানে সক্ষম।

Microsoft Lumia 535 (2)

 

শুধু যে ডিসপ্লে ইউনিট আপগ্রেড হয়েছে তা কিন্তু নয়, মাইক্রোসফটের লুমিয়া ৫৩৫ স্মার্টফোনটির ক্যামেরা ইউনিটটিতেও বেশ কিছু উন্নতি লক্ষ্য করা গিয়েছে। স্মার্টফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ৫ মেগাপিক্সেলের রেয়ার এবং ফ্রন্ট-ফেসিং ক্যামেরা এবং মেইন ক্যামেরাতে (রেয়ার) একটি এলইডি ফ্ল্যাশও রয়েছে। পূর্বের লুমিয়া ৭৩৫ এবং লুমিয়া ৮৩০ স্মার্টফোনগুলোর ক্যামেরা লিড ফলো করেই হয়তো লুমিয়া ৫৩৫ এর ফ্রন্ট ক্যামেরায় ওয়াইড-অ্যাঙ্গেল লেন্স ব্যবহার করা হয়েছে যাতে করে চমৎকার ‘গ্রুপ সেলফি’ ক্যাপচার করা যায়। ক্যামেরা ইউনিটের ফোকাসিং স্পিড এবং পারফর্মেন্স আপনাকে চমৎকৃত করবে; আর বেশি কিছু ক্যামেরা সম্পর্কে নাই বা বলি, ভবিষ্যতেই দেখে নেয়া যাবে।

Microsoft Lumia 535 (1)

 

মাইক্রোসফটের লুমিয়া ৫৩৫ স্মার্টফোনটিতেও লুমিয়া ৫৩০ এর মত স্ন্যাপড্রাগন ২০০ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। এটা একদিক দিয়ে একটা ডাইন সাইড কেননা, ৫৩০ এর প্রসেসর লুমিয়া ৫২০ এর ডুয়াল-কোর প্রসেসরের তুলনায় কম কার্যক্ষম ছিল! পরীক্ষা করার সময়, লুমিয়া ৫৩৫ কেও কিছুটা ল্যাগি মনে হয়েছে তবে এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে যে ডিভাইসটিতে তখন নন-ফাইনাল ফার্মওয়্যার ছিল! তাই আশা করাই যায় যে বাজারে আসার আগে আরও কিছু ইম্প্রুভমেন্ট সিপিইউ ইউনিট দেখতেই পারে।

Microsoft Lumia 535 (4)

 

স্মার্টফোনটিতে আপনি ৩জি ব্যবহার করতে পারবেন, ৪জি সুবিধা ডিভাইসটিতে রাখা হয়নি! তবে, আমাদের দেশের ক্ষেত্রে চিন্তা করলে এখনো ৩জি সুবিধাই আমাদের সবার কাছে গিয়ে পৌছায় নি তাই ৪জি নিয়ে আপাতত না ভাবলেও চলবে। ডিভাইসটির স্টোরেজ ইউনিটে রয়েছে ৮ গিগাবাইট অন-বোর্ড স্টোরেজ এবং মাইক্রো এসডি কার্ড স্লট! আশা করি, ইন্টারনাল স্টোরেজেই বেশিরভাগ ব্যবহারকারীর কাজ হয়ে যাবে তবুও যেহেতু এক্সটার্নাল কার্ড স্লট রয়েছে তাই আশা করি খুব বেশি ভাবতে হবেনা কাউকেই।

Microsoft Lumia 535 (6)

 

লুমিয়া সিরিজের প্রায় সব স্মার্টফোনগুলোতেই ছিল বিভিন্ন রঙের বৈচিত্র, এবং বিভিন্ন রঙের এই স্মার্টফোনগুলো ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে বেশ সারা পেয়েছে। এর জন্যেই হয়তোবা মাইক্রোসফটের লুমিয়া ৫৩৫ স্মার্টফোনটিতেও রঙের এই ধারাবাহিকতা রক্ষা করা হয়েছে। লুমিয়া ৫৩৫ স্মার্টফোনটি পাবেন গ্লসি সবুজ এবং কমলা, কালো ম্যাট কালার এবং সাধারণ সাদা এবং ধূসর রঙ্গেও। এছাড়া মাইক্রোসফটের ‘নীল’ রং-তো থাকছেই। একটু চিন্তা করলে দেখবেন যে বেশ কিছুটা সময় বিরতি দিয়ে আবারও ধূসর রঙটি ফিরে এসেছে লুমিয়া সিরিজে এবং ছবিতে দেখতেই পাচ্ছেন, ধূসরে চমৎকার ফুটেও উঠেছে স্মার্টফোনটি।

Microsoft Lumia 535 (5)

 

যাই হোক, এই ছিল লুমিয়া ৫৩৫ স্মার্টফোনটির প্রিভিউ। আমি দাম সম্পর্কে কিছু লিখছিনা কেননা আমি পারফেক্ট ভাবে এই ডিভাইসটির দাম সম্পর্কে অবগত নই – তাই ভুল তথ্য আপনাদের সাথে শেয়ার করতে চাইছিনা। তবে এটা অবশ্যই বলব, এই স্মার্টফোনটি হতে চলেছে বেশ চমৎকার একটি বাজেট স্মার্টফোন যার ডিসেন্ট লুক এবং পারফর্মেন্স অনেক অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীকেও হয়তো আবার উইন্ডোজ প্লাটফর্মে ফিরিয়ে আনবে। কিন্তু, ঐ যে একটি ডাউন সাইড – স্ন্যাপড্রাগন ২০০ প্রসেসিং ইউনিট! দেখা যাক, মাইক্রোসফট কি করে!

1 COMMENT