বিনা মূল্যের জনপ্রিয় অ্যাপ্লিকেশন ও জনপ্রিয় নতুন অ্যাপ বিভাগে গুগলের প্লে স্টোরে বেশ কিছু ‘অশ্লীল’ অ্যাপ্লিকেশন ঠাঁই করে নিয়েছিল। অশ্লীল ছবি, অশ্লীল ভিডিও কিংবা যৌন গল্প প্রভৃতি কনটেন্ট এসব অ্যাপ্লিকেশনে দেখানোর কথা বলা হয়। দীর্ঘদিন ধরেই এ ধরনের অশ্লীল অ্যাপ্লিকেশনগুলো প্রকাশের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়নি গুগল। তবে এবারে যৌনতাপূর্ণ কনটেন্ট-সমৃদ্ধ অ্যাপসগুলো গুগলের অ্যাপ্লিকেশন স্টোর ‘প্লে স্টোর’ থেকে সরানোর পরিকল্পনা করেছে গুগল কর্তৃপক্ষ।
এক প্রতিবেদনে প্রযুক্তিবিষয়ক ওয়েবসাইট টেক ক্রাঞ্চ জানিয়েছে, দীর্ঘদিন ধরেই গুগলের অ্যাপ্লিকেশন স্টোরে অশ্লীল অ্যাপ্লিকেশন প্রকাশের অনুমতিতে বাধা ছিল না। কিন্তু এবার বিতর্কিত অ্যাপ্লিকেশনগুলো প্লে স্টোর থেকে সরিয়ে ফেলার পরিকল্পনা করেছে প্রতিষ্ঠানটি। সম্প্রতি গুগল তাদের অ্যাপ্লিকেশন প্রকাশের নীতিমালায় পরিবর্তন এনেছে, যাতে অশ্লীল কিছু থাকলে সে অ্যাপ্লিকেশন প্লে স্টোরের মাধ্যমে বিতরণ বন্ধ করে দেবে গুগল। এর আগ কেবল যৌনতা ও কুরুচিপূর্ণ অ্যাপ্লিকেশনগুলো গুগল প্লে স্টোরে প্রকাশ করার অনুমতি ছিল না।

প্রযুক্তি-বিশ্লেষকেরা বলছেন, গুগলের এই পদক্ষেপের মাধ্যমে প্লে স্টোরে অশ্লীল ছবির অ্যাপস ও প্রাপ্তবয়স্কদের গল্পের অ্যাপ্লিকেশনগুলো ছড়িয়ে পড়া বন্ধ হবে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা গেছে, এ ধরনের অ্যাপ্লিকেশনগুলো প্লে স্টোর থেকে বিনা মূল্যে ডাউনলোড করার সুবিধা থাকায় নতুন স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের কাছে তা আকর্ষণীয় মনে হয় এবং এই অ্যাপ্লিকেশনগুলো জনপ্রিয় হয়। এসব অ্যাপসের মাধ্যমে কুরুচিপূর্ণ বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে অ্যাপস নির্মাতারা।
গুগল শুধু অশ্লীল অ্যাপ্লিকেশনের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে যাচ্ছে না, একই সঙ্গে অসংগতিপূর্ণ আইকন, টাইটেল, বর্ণনার ক্ষেত্রেও কঠোর হচ্ছে। এ কারণেই ফোন সম্পাদনার অ্যাপ্লিকেশন ‘টিয়ার ক্লথ’কেও গুগলের কোপের মুখে পড়তে হয়েছে।
অ্যাপ্লিকেশনের মধ্যে বিজ্ঞাপন দেওয়ার নীতিমালাও আপডেট করেছে গুগল।

সংগ্রহেঃ প্রথম-আলো