ফেসবুক ব্যবহারকারীরাই জানে একমাত্র ফেসবুকের মূল্য কত ! আমি বলতে চাচ্ছি ফেসবুক অ্যাডিক্টেড শুধু না বর্তমানে কিছু ব্যবহারকারী বাদে প্রায় সব ফেসবুক ইউজারের কাছে ফেসবুক অতি মূল্যবান একটি ধন সম্পদ ! ফেসবুক আইডি হ্যাক এবং ফেসবুক আইডি ব্যান হলে হারাতে হয় আমাদের প্রিয় আইডিটি। এর পূর্বে ফেসবুক হ্যাক থেকে বাঁচার কিছু টিপস আপনাদের জন্য লিখেছি। কিন্তু আজ লিখছি ফেসবুক আইডি ব্যান হওয়া থেকে বাঁচার টিপস নিয়ে। সাধারণত ফেসবুক তাঁর ব্যবহারকারীদের জন্য বেশ কিছু নীতিমালা প্রনয়ন করে দিয়েছে। আর সেইসব নীতি বিরোধী কাজ করলেই ফেসবুক কতৃপক্ষ আপনার আইডি সোজা লিখিয়ে দিবে ব্যান এর খাতায়! সোজা কথা, ফেসবুক আপনার আইডি পুরোপুরিভাবে ব্যান করে দিবে। আজ আপনাদের সাথে শেয়ার করছি ৫টি মূল্যবান টিপস, যা আপনার আইডি ব্যান হওয়া থেকে রক্ষা করতে সহায়ক করবে।

নগ্ন ছবি বা ভিডিও পোষ্ট করা থেকে দূরে থাকুন

 50505_114485265244684_1384332_n

ফেসবুকে সম্পূর্ণভাবে নগ্ন  ছবি বা ভিডিও বিষয়বস্তু নিষিদ্ধ। তাই এসব থেকে ১০০০০ হাত দূরে থাকুন। আপনি ফেসবুকে খারাপ ছবি, ভিডিও শেয়ার করলে এবং ফেসবুক কোনভাবে তা বুঝলেই আপনার আইডি নিশ্চিন্ত ব্যান! আর নগ্ন ফেসবুক পোস্টে যথেস্ট সংখ্যক ব্যক্তি রিপোর্ট করলে আপনার আইডি ব্যান করে দিবে ফেসবুক।

অশালীন ভাষা ব্যবহার করবেন না

 STOP-HATE-SPEECH-2

ফেসবুকে চ্যাটিং বা কমেন্টে কখনই খারাপ কিংবা অশালীন ভাষা ব্যবহার করবেন না। আপনার কাছে এই টপিক গুরুত্বহীন মনে হলেও জেনে রাখুন, অশালীন মন্তব্য বা ভাষা ব্যবহার ফেসবুক নীতিমালা বিরোধী। আর আপনি নিশ্চয়ই জানেন ফেসবুক তাঁর নীতির বিরোধী কোন ইউজারকে বরদাস্ত করে না ! তাই ফেসবুকে অশালীন মন্তব্য করবেন না।

ভুয়া অ্যাকাউন্ট খুলবেন না

 Fake-profile

আপনি নিশ্চয়ই জানেন ফেসবুক ফেইক অ্যাকাউন্ট বা ভুয়া অ্যাকাউন্ট সনাক্ত করতে সদা সচেষ্ট। হ্যাঁ, ফেসবুক কখনই ফেইক অ্যাকাউন্ট বা মিথ্যা তথ্য দিয়ে তৈরি আইডি কখনই সমর্থন দেয়না। আপনারা কখনও হয়ত খেয়াল করে দেখেছেন যে, ফেইক অ্যাকাউন্ট বেশিদিন টিকে না। কথাটা সত্য, ফেসবুক ফেইক আইডি সনাক্ত করতে পারলেই তা ব্যান করে দেয়।

স্পামিং কে না বলুন

 facebook-spam

অনেকেই ফেসবুক আইডি খুলে স্পামিং এর জন্য। ফেসবুক সবসময়ই চায় তাঁর ইউজাররা যাতে নিরাপদ থাকে। তাই ফেসবুক স্পামিং কেও প্রশ্রয় দেয়না। অতিরিক্ত স্পামিং করলে আপনি নিশ্চিত থাকুন, আপনার আইডির আয়ু প্রায় শেষ হয়ে এসেছে। তাই ফেসবুকে স্পামিং করবেন না।

অতিরিক্ত ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাবেন না

add-as-friend
ফেসবুক চায় ইউজাররা শুধু তাদের চেনা পরিচিত ফ্রেন্ডদেরকে ফেসবুক ফ্রেন্ড লিস্টে রাখে। কিন্তু আমরা সাধারণ পাবলিক ঠিক তাঁর উল্টা। আমরা চেনা অচেনা সবাইকেই ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাই এবং বন্ধু বানাতে চাই। কিন্তু আপনি লক্ষ্য করে থাকবেন যে আপনি অতিরিক্ত ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠালে ফেসবুক আপনাকে বেশ কয়েকবার সতর্ক করে দেয়। তারপর কিছুদিনের ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট ব্লক করে এবং তাতেও আপনি ঠান্ডা না হলে আপনাকে আটকাতে ফেসবুক একেবারেই আইডি ব্যান করে দেয়।

এছাড়াও রয়েছে অসংখ্য ফেসবুক নীতি। আমি শুধুমাত্র গুরুত্বপূর্ণ ৫টি টিপস শেয়ার করলাম। এগুলো মানলে আপনার ফেসবুক আইডি থাকবে সুরক্ষিত। ধন্যবাদ পোষ্টটি পড়ার জন্য।